শিক্ষার্থীদের এমন ভাবে পাঠদান করানো উচিত যেন তারা শিখে কিভাবে চিন্তা করতে হয়
আপনি যেটাই করেন না কেন, সেটা যেন মন দিয়া করেন। আপনি গুলি করছেন, আপনার মন শুধুমাত্র টার্গেটের দিকে থাকা উচিত, তাহলে আপনি মিস করবেন না। তেমনি ভাবে আপনি যদি পাঠদানের কাজে নিযুক্ত থাকেন তাহলে এমন কিছু করা উচিত যেন আপনি আপনার মনযোগ শুধুমাত্র পাঠ দানের দিকে দিতে পারেন।
প্রতিটি স্কুল, একটি স্মার্ট স্কুল

আমাদের ইশকুল তৈরি করা হয়েছে যাতে করে স্কুল পরিচালনায় স্বচ্ছতা আসে । শিক্ষক, শিক্ষাথী ও অভিভাবক এর মধ্যে দূরত্ব কমে যায় । শিক্ষক যেন প্রশাসনিক কাজে ব্যস্ত না হয়ে শ্রেনী কক্ষে পাঠদানে বেশি সময় দিতে পারেন । শিক্ষাথী যেন খুব সহজে শিক্ষক এর সাথে যোগাযোগ করতে পারে এবং সহজে কোর্স উপকরণ অ্যাক্সেস করতে পারে । আমাদের ইশকুল হলো এক এর ভিতর সব স্কুল এবং কলেজ ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার। আপনার প্রতিষ্ঠান এর জন্য যা যা দরকার তার সবই এখানে পাবেন এক সাথে। প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট, গ্রেডবুক, ফি-ব্যবস্থাপনা, শিক্ষার্থী ব্যবস্থাপনা, গ্রন্থাগারের ব্যবস্থাপনা, পিতা-মাতা শিক্ষক যোগাযোগ, উপস্থিতি এবং আরও ৪০ এর অধিক গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য। আপনি আজই এই আধুনিক এবং নির্ভরযোগ্য স্কুল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের এর একজন কাস্টমার হোন ।

আমাদের গল্প

২০১৪ থেকে স্মার্ট, আধুনিক এবং নিরাপদ স্কুল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম

  • মার্চ
    ২০২০
    করোনাভাইরাসে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়গুলো বন্ধ থাকার কারণে শিক্ষার্থীদের অপূরণীয় ক্ষতি হচ্ছে। দূর-শিক্ষণ / ই-লার্নিংয়ের ভিত্তিতে পাঠদান এর ব্যপক চাহিদার কারনে আমাদের লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমকে বিনামূল্যে ব্যবহার করতে দেওয়া সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো।
  • ফেব্রুয়ারী
    ২০২০
    বিশ্ব জুড়ে করোনো ভাইরাস মহামারী আকার ধারন করেছে। এই পরিস্থিতিতে স্কুল আমাদের লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে পড়াশুনা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে থাকলো।
  • জানুয়ারী
    ২০২০
    দেশের গন্ডি পার হয়ে বিদেশের মাটিতে পা ফেলে আমাদের ইশকুল। বাংলাদেশের পাশাপাশি আরও ২টি দেশে আমাদের কর্মকাণ্ড বিস্তৃত করা হয়।
  • সেপ্টেম্বর
    ২০১৯
    যুগের সাথে তাল মিলিয়ে আমরা আরও নতুন নতুন প্রযুক্তিগত অগ্রগতি করতে থাকলাম। সেই সহজ সফটওয়্যারটি আজ একটি বিশ্ব মানের ই-আর-পি সিস্টেম।
  • জানুয়ারী
    ২০১৯
    আমরা একটি বিশ্বমানের দূর-শিক্ষণ / ই-লার্নিংয়ের ভিত্তিতে পাঠদান সিস্টেম এর ডেভেলপমেন্ট শুরু করলাম।
  • ডিসেম্বর
    ২০১৮
    ৫টি জেলার মোট ২৬ টি স্কুল ও কলেজ আমাদের সেবা নিতে শুরু করে। আমাদের মনোযোগ স্কুল সংখ্যার উপর নয় বরং মানসম্মত সেবার দিকেই আমরা গুরুত্ব দিতে থাকলাম।
  • অক্টোবর
    ২০১৮
    সমন্বিত ফিঙ্গারপ্রিন্ট তালিকাভুক্তি প্রক্রিয়া শুরু। সকল শিক্ষক, ছাত্র, অভিভাবকদের জন্য একটি র্পুনাঙ্গ ডিজিটাল স্কুল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের কাজ সফল ভাবে চলতে থাকে।
  • এপ্রিল
    ২০১৮
    ৫০০ এর অধিক টেমপ্লেট বিশিষ্ঠ টেমপ্লেট ইঞ্জিন মডিউল এর মুক্তি
  • ফেব্রুয়ারী
    ২০১৮
    অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ এর প্রথম ডেমো সংস্করণ মুক্তি
  • জানুয়ারী
    ২০১৮
    "ই-কলেজ" কে নতুন নামে ব্র্যান্ডেড করা হয়। নতুন নাম দেওয়া হয় "আমাদের ইশকুল"। বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন করার জন্যই এই নতুন নামে ব্র্যান্ডেড করা হয়।
  • এপ্রিল
    ২০১৬
    মোট ৫টি মডিউলে (ওয়েব, জনবল, বিষয়, গ্রন্থাগার, অর্থ ও অ্যাকাউন্টিং) ভাগ করা হয় পুরা সিস্টেমকে।
  • জানুয়ারী
    ২০১৬
    ৩টি কলেজে পরীক্ষামুলক ভাবে চলতে থাকে আমাদের সিস্টেম।
  • জানুয়ারী
    ২০১৫
    বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার একটি কলেজে “ই-কলেজ” এর প্রথম সফল পরীক্ষা করা হয়। তখনকার সিস্টেমে শুধুমাত্র ওয়েব মডিউল এর সাথে একটি সহজ ছাত্র তথ্য সিস্টেম ছিল।
  • জুন
    ২০১৪
    “ই-কলেজ” নামে পূর্ণাঙ্গ একটি স্কুল, কলেজ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম এর কাজ শুরু করা হয়।
  • জানুয়ারী
    ২০১২
    আমরিন ইনফো টেক লিমিটেডের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু