আমাদের ইশকুল এর আরও কয়েকজন আনন্দিত গ্রাহক

আমরা আমাদের ইশকুল কলেজ ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার ২০১৪ সাল থেকে ব্যবহার করে আসছি। এটি একটি চমৎকার অভিজ্ঞতা। আমাদের ইশকুল স্পষ্টতই একটি ভাল উদ্যোগ ।

image

কে এম রব্বানী সহযোগী অধ্যাপক যশোর সরকারী মহিলা কলেজ, যশোর

সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজ মনে করে আজকের এই টেকনোলজির যুগে আমাদের ইশকুল এর মত একটি স্কুল ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার ছাড়া চিন্তাই করা যায় না। আমরা মনে করি আমাদের ইশকুল ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাএায় একটা বড় ভুমিকা রাখতে পারবে।

আমাদের ইশকুল এর খরচ, সুবিধা ও বৈশিষ্ট্য আমাদের চাহিদা পূরণ করেতে সক্ষম হয়েছে। আমাদের ইশকুল এর মত একটি স্কুল ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার এর সাথে থাকতে পেরে আমরা অনেক আনন্দিত।

আমাদের স্কুলের তথ্য সংরক্ষন ও পরিচালনা নিয়ে কোন চিন্তাই এখন আর করা লাগে না কারন এই সব কিছু করার জন্য আমরা ব্যবহার করি আমাদের ইশকুল স্কুল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। বাজারের অন্য অনেক সফটওয়্যার আগে আমরা ব্যবহার করেছি কিন্তু কোনটাই আমাদের চাহিদা পুরন করতে পারে নাই। একমাত্র আমাদের ইশকুল সিস্টেম-ই সফল ভাবে আমাদের সকল চাহিদা পুরনে সক্ষম হয়েছে। আমরা এই সফটওয়্যারটির আরও সাফল্য কামনা করি।

image

মোঃ আলাউদ্দিন ফারুক (প্রিন্স) পরিচালক সাতক্ষীরা পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ

আগে আমাদের কলেজের তথ্য সংরক্ষন ও পরিচালনা নিয়ে অনেক চিন্তা করতাম। সময় মত রেজাল্ট তৈরি, ছাত্রছাত্রীদের বেতন হিসাব, শিক্ষক-স্টাফ ও ছাত্রছাত্রীদের প্রতিদিনের হাজিরা সহ কলেজের অনেক কাজ আগে হিসাব করতে ঘন্টার পর ঘন্টা সময় লাগতো। কিন্তু আমাদের ইশকুল সিস্টেম ব্যবহারের পর থেকে এই গুলো নিয়ে এখন আর কোন চিন্তাই করা লাগে না। আমাদের ইশকুল আসলেই খুবই বড় মাপের একটি সফটওয়্যার।

উজোপাডিকো উচ্চ বিদ্যালয় খুলনার একটি সনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আমরা স্কুলটিকে অনেক ভাবে উন্নয়ন করেছি কিন্তু সবকিছু আগে করা হতো ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে। ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে সবই করা যায় কিন্তু সময় লাগে। এজন্য আমরা চিন্তা করলাম বাজারের সবথেকে ভালো মানের স্কুল ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার ব্যবহার করবো। আর এজন্য সব সনামধন্য সফটওয়্যারের বৈশিষ্ট্য গুলো একটি প্রেসেন্টেশন এর মাধ্যমে দেখলাম। প্রেসেন্টেশন দেখে আমি বুঝতে পারলাম যে আমাদের ইশকুলের খরচ, সুবধা ও বৈশিষ্ট্য সব দিক দিয়ে এটি এগিয়ে। আর সময় নষ্ঠ না করে আমাদের ইশকুল ব্যবহার শুরু করলাম।

image

অন্নদা শঙ্কর মল্লিক প্রধান শিক্ষক উজোপাডিকো উচ্চ বিদ্যালয়

বিগত ৩ বছর ধরে আমরা অন্য একটি সিস্টেম ব্যবহার করছিলাম কিন্তু ঐ সিস্টেম কোন ভাবেই আমাদের চাহিদা পুরন করতে সক্ষম হচ্ছিলো না। অনেক দিন ধরে তাই এটির পরিবর্তন অনুভব করছিলাম। কিন্তু কোন ভাবেই একটি ভালো মানের সিস্টেম পাচ্ছিলাম না। অবশেষে আমরা আমাদের সেই মনের মত সিস্টেম খুজে পেয়েছি। আমাদের ইশকুলের প্রযুক্তিগত উন্নয়ন দেখে আমরা এর ব্যবহার শুরু করলাম।

নবজীবন ইনস্টিটিউট সাতক্ষীরার একটি পুরাতন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আগে আমরা অন্য একটি প্রতিষ্ঠানের ডিজিটাল হাজিরা ব্যবহার করতাম , কিন্তু সেটি ক্লাউড বেসড না হওয়ার কারনে একটি মাত্র কম্পিউটারের মাধ্যমে আমাদের হাজিরার রিপোর্ট নিতে হতো। এটি খুবই পুরাতন প্রযুক্তি। আমরা যখন আমাদের ইশকুল এর খবর পেলাম তখন আমরা আমাদের অভিজ্ঞতার আলোকে যাচাই শুরু করলাম এবং এর সর্বশেষ প্রযুক্তির ব্যবহারে আমরা অবিভুত হলাম। আমাদের ইশকুল এখন আমাদের প্রতিষ্ঠানের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে গেছে।

image

মোঃ আবুল কালাম আজাদ সহকারী প্রধান শিক্ষক নবজীবন ইনস্টিটিউট